BN

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (১৯ জানুয়ারি ১৯৩৫[1] — ১৫ নভেম্বর ২০২০[2]) একজন ভারতীয়বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা। অভিনেতা হিসেবে তিনি কিংবদন্তি, তবে আবৃত্তি শিল্পী হিসেবেও তার নাম অত্যন্ত সম্ভ্রমের সাথেই উচ্চারিত হয়। তিনি কবি এবং অনুবাদকও। বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের ৩৪টি সিনেমার ভিতর ১৪টিতে অভিনয় করেছেন।[3]

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়

একটি অনুষ্ঠানে রবীন্দ্রনাথের কবিতা পাঠ করছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়
জন্ম (১৯৩৫-০১-১৯)১৯ জানুয়ারি ১৯৩৫

মৃত্যু ১৫ নভেম্বর ২০২০(2020-11-15) (বয়স ৮৫)

নাগরিকত্ব ভারতীয়
পেশা চলচ্চিত্র ও মঞ্চ অভিনেতা, লেখক, আবৃত্তিকার
দাম্পত্য সঙ্গী দীপা চট্টোপাধ্যায় (বি. ১৯৬০)
সন্তান পুত্র সৌগত চট্টোপাধ্যায় এবং কন্যা পৌলমী চট্টোপাধ্যায় (বসু)
পিতা-মাতা মোহিত কুমার চট্টোপাধ্যায়
আশালতা চট্টোপাধ্যায়

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমহার্স্ট স্ট্রীট সিটি কলেজে, সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেন। ১৯৫৯ খ্রিষ্টাব্দে তিনি প্রথম সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় অপুর সংসার ছবিতে অভিনয় করেন। পরবর্তীকালে তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মত পরিচালকদের সঙ্গেও কাজ করেছেন।[4] সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক, যাত্রা, এবং টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন। অভিনয় ছাড়া তিনি নাটক ও কবিতা লিখেছেন, নাটক পরিচালনা করেছেন।

. . . সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় . . .

চট্টোপাধ্যায় পরিবারের আদি বাড়ি ছিল অধুনা বাংলাদেশেরকুষ্টিয়ার শিলাইদহের কাছে কয়া গ্রামে।[1] সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের পিতামহের আমল থেকে চট্টোপাধ্যায় পরিবারের সদস্যরা নদিয়া জেলারকৃষ্ণনগরে থাকতে শুরু করেন।[5] সৌমিত্রর পিসিমা তারা দেবীর সঙ্গে ‘স্যার’টেমপ্লেট:আশুতোষ মুখোপাধ্যায়ের জ্যেষ্ঠ পুত্র কলকাতা হাইকোর্টের জাস্টিস টেমপ্লেট:রমাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের বিবাহ হয়। সৌমিত্রর পিতৃদেব কলকাতা হাইকোর্টে ওকালতি করতেন এবং প্রতি সপ্তাহান্তে বাড়ি আসতেন। সৌমিত্র পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন কৃষ্ণনগরের সেন্ট জন্স বিদ্যালয়ে। তারপর পিতৃদেবের চাকরি বদলের কারণে সৌমিত্রর বিদ্যালয়ও বদল হতে থাকে এবং উনি বিদ্যালয়ের পড়াশোনা শেষ করেন হাওড়া জিলা স্কুল থেকে। তারপর কলকাতার সিটি কলেজ থেকে প্রথমে টেমপ্লেট:আইএসসি এবং পরে বিএ অনার্স (বাংলা) পাস করার পর পোস্ট গ্র্যাজুয়েট কলেজ অফ আর্টস-এ দু-বছর পড়াশোনা করেন।[6] কলেজে বাংলা অনার্স নিয়ে পড়ার সময় নাট্যব্যক্তিত্ব শিশির কুমার ভাদুড়ীর সাথে যোগাযোগ ঘটে তার। তখন থেকে অভিনয়কে জীবনের প্রধান লক্ষ্য করে নেবার কথা দেখেছিলেন। ভাদুড়ির অভিনয় সৌমিত্রকে গভীরভাবে অনুপ্রাণিত করেছিল।[1]

কর্মজীবন শুরু হয় অল ইন্ডিয়া রেডিওর ঘোষক হিসেবে। পাশাপাশি থিয়েটারে অভিনয় এবং ছবিতে অডিশন দিচ্ছিলেন। ১৯৫৭ সালে পরিচালক কার্তিক বসুরটেমপ্লেট:’নীলাচলে মহাপ্রভু’‘ ছবিতে অডিশন দিলেও জায়গা পাননা, তার বদলে সুযোগ পেয়েছিলেন অসীমকুমার।[5]

. . . সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় . . .

This article is issued from web site Wikipedia. The original article may be a bit shortened or modified. Some links may have been modified. The text is licensed under “Creative Commons – Attribution – Sharealike” [1] and some of the text can also be licensed under the terms of the “GNU Free Documentation License” [2]. Additional terms may apply for the media files. By using this site, you agree to our Legal pages . Web links: [1] [2]

. . . সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় . . .

Back To Top